আমি ইসলামের সন্তান, আদমের বংশধর – হযরত সালমান ফারসী (রাঃ)

হযরত সালমান ফারসী

বংশ সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে ইসলাম গ্রহনের পর এভাবে যিনি উত্তর দিতেন তিনি হলেন ধার্মিক, রহস্যময়, ফকীহ, জ্ঞানী, দরবেশ ও রাসূল (সাঃ) প্রিয় সাহাবী হযরত সালমান ফারসী (রাঃ)। মহান খোদাতায়ালা রাসূলে পাক (সাঃ) এঁর আহলে বায়াত ও সালমান ফারসী (রাঃ) কে নিম্নের আয়াত দ্বারা একত্রিত করছেনঃ “যেন আল্লাহ তোমার অতীত ও ভবিষ্যত ত্রুটি সমূহ মাজর্না করেন।” (সূরা-ফাতহ, আয়াত-২)। রাসূলে পাক (সাঃ) এঁর আহলে বায়াত ছিলেন পুতঃপবিত্র ও ক্ষমা প্রাপ্ত। রাসূল পাক (সাঃ) সরাসরি বংশ না হওয়ার পরে ও রাসূল (সাঃ) বলতেন, “সালমান আমার পরিবারে অন্তভূর্ক্ত”। ইসলাম গ্রহনের পর জীবনের বেশির…

বহলুল পাগলার বেহেশত বিক্রি

বহলুল sufibad24 com

আমার প্রানের মুর্শিদ বিশ্বওলী হযরত খাজাবাবা ফরিদপুরী (কুঃছেঃআঃ) ছাহেবের ধারনকৃত পবিত্র কন্ঠ মোবারকে বহলুল পাগলার বেহেশত বিক্রির নসিহত আমরা শুনেছি। একটু বিস্তারিত বলার ক্ষুদ্র চেষ্টাঃ আব্বাসীয় বংশের পঞ্চম খলিফা হারুনুর রশিদ। বাগদাদে তিনি প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিবেন। কিন্তু কাকে প্রধান বিচারপতি হিসাবে নিয়োগ দেয়া এ নিয়ে তিনি তার সভাসদদের সাথে পরামর্শ সভা করলেন। সবাই এক বাক্যে বললো, ” ওহাব ইবনে উমার অর্থাৎ বহলুলের চেয়ে এই পদের যোগ্য আর কেউ নেই। কারন তিনি একজন নামকরা আলেম ও ফকীহ ব্যক্তি। সবার পরামর্শে খলিফা হারুন বহলুলকে ডাকলেন। তাকে উদ্দেশ্য করে বললেন, “ফকীহ সাহেব!!…

সৈয়দ সিরাজুল কবির – বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম

সৈয়দ সিরাজুল কবির - বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম

সৈয়দ সিরাজুল কবির – বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম আজ কিছু কথা বলছি এমন একজনকে নিয়ে যিনি তার কর্ম দিয়ে তরীকতপন্থীদের মাঝে বেঁচে থাকবেন কেয়ামত পর্যন্ত। তিনি সৈয়দ সিরাজুল কবীর যিনি কেবলাজান হুজুর খাজাবাবা ফরিদপুরী (কু : ছে : আ : ) ছাহেব এর মহা পবিত্র নসিয়ত শরীফের শ্রুতিলিপি কেবলাজানের পবিত্র জবান থেকে সংগ্রহ করেছেন। উল্লেখ করা প্রয়োজন একাজে তার সাথে আরো ছিলেন জনাব আক্তার হোসেন কাবুল যিনি আজও বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে খেদমতে নিয়োজিত আছেন। আমি বেশ কিছু দিন জনাব সৈয়দ সিরাজুল কবীরের সান্নিধ্যে ছিলাম বিশেষ করে আল মুজাদ্দেদ এ…

লাল মিয়া – বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম

লাল মিয়া - বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম

লাল মিয়া – বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের প্রবীণ খাদেম আজ যাকে নিয়ে লিখছি তিনি একজন সাধারণ মানুষ। আপন পীরের প্রতি মহব্বত, আর নিবেদন দিয়ে কি করে একজন সাধারণ মানুষ নিজেকে এক অনন্যা স্থানে নিতে পারে তিনি তার উজ্জ্বল উদাহরণ। কেয়ামত পর্যন্ত বিশ্ব জাকের মঞ্জিল থাকবে, কেবলাজান হুজুরের পবিত্র নসিহত থাকবে এবং এর সাথে তিনি থেকে যাবেন ভক্তি আর নিষ্ঠার এক অনন্যা উদাহরণ হিসাবে। কেবলাজান হুজুরের তরীকত প্রচারের সূচনা লগ্নে তিনি ছিলেন কেবলাজানের ছায়া সঙ্গী। ছিলেন কেবলাজানের ব্যাক্তিগত বাবুর্চি। ছিলেন কেবলাজানের পরিবারের একজনের মত। তিনি সম্মানিত লাল মিয়া। পবিত্র নসিহত শরীফে যে…