আটরশী পীর সাহেব কাদের কাছে আলোচিত সমালোচিত?

আটরশী পীর সাহেব কাদের কাছে আলোচিত সমালোচিত? sufibad
আটরশী পীর সাহেব কাদের কাছে আলোচিত সমালোচিত?
ইনভেস্টিগেশন এবং জাস্টিফাই করে বুঝা যায় যে, আটরশী পীর সাহেব যাদের কাছে বিপরীতমুখী সমালোচিত তারা হলো একটা গোষ্ঠী আর এই একটা গোষ্ঠী যে কয়টি শাখায় বিভক্ত তারা হলো ওহাবী, খারেজী, সালাফী লা-মাজহাবী,আহলে হাদীস,জামাতী সহ আক্বিদায় আহলুস সুন্নার বহির্ভূত যতগুলো সম্প্রদায় আছে তাদের সবার নিকটই তিনি সমালোচিত।
আটরশী পীর সাহেব সম্পর্কে এদের প্রত্যেকের কাছে নানানরকম ফতুয়া পাওয়া যায়। যেমন: কাফের, মোশরেক,নাস্তিক,বেদাতি,ভন্ড,ইমানহারা,জাহেল কোনো কিছুই যেনো বাদ নেই কিন্তু কেনো এসব ফতুয়া? কিসের জন্য এইসব ফতুয়া দিচ্ছে আটরশী পীর সাহেবকে। তা যদি পর্যবেক্ষণ করা হয়…….
ফতুয়া (১): আটরশী পীর বেদাতি পীর।
কারণ: তিনি রাসূলে পাক (সাঃ) এর শানে ও মহব্বতে মিলাদ কিয়াম করে।
ফতুয়া (২): আটরশী পীর কাফের।
কারণ: তিনি বলেছেন, রাসূল তোমারি কারণে বিশালও ভুবনে আমার আল্লাহজিরও পরিচয়।
না ছিলো আকাশ, না ছিলো বাতাস,ছিলো না দ্বীপ্তিময়।
ফতুয়া (৩): আটরশী পীর ইমানহারা।
কারণ: তিনি বলেছেন, ইমান ও আমলও আমার নবী মোস্তফায়গো।
ফতুয়া (৪): আটরশী পীর জাহেল।
কারণ: তিনি বলেছেন, এমন হাবীবও আমার মুক্তিরো কারণে এলো,ওফাতেরো পরেও নবীজি পাপীদেরকে না ভুলিলো।
ফতুয়া (৫): আটরশী পীর নাস্তিক।
কারণ: তিনি বলেছেন,
নবী প্রেমও সুধা পান করোও সবে,
মনো বেদনা ‘যাতনা ‘ জুড়াইবে।
খোদা প্রাপ্তি পথে তরো লাভও হবে,
নবী পদবীনে ভাবো সবি মিছে।
ফতুয়া (৬): আটরশী পীর গোমরাহী।
কারণ: তিনি বলেছেন,
যারো কারণে জগত সৃজনোরে,
দেখো চন্দ্র সূর্য তারা শূন্য ভরে।
আছে অচল নিশ্চল ধরা ধরে,
নবী পদ বিনে ভাবো সবই মিছে।
ফতুয়া (৭): আটরশী পীর জাহান্নামী।
কারণ: তিনি বলেছেন, রাসূল (সাঃ) নূরের তৈরি,তিনার নূরে সৃষ্টি জগত তৈরি।
ফতুয়া (৮): আটরশী পীরের কাছে যাওয়া যাবে না।
কারণ: তিনি বলেছেন, রাসূলে পাক (সাঃ) প্রথম শাফায়াতকারী,তিনার শাফায়াতে উম্মত নাজাত পাবে।
ফতুয়া (৯): আটরশী পীর পথভ্রষ্ট।
কারণ: তিনি বলেছেন, দয়াল নবী রাসূলে পাক (সাঃ) না হইলে আসমান জমিন কিছুই সৃষ্টি হতো না, তিনার উছিলায় সৃষ্টি জগতের সব কিছু সৃষ্টি।
ফতুয়া (১০): আটরশী পীর কোরআন হাদীস মানে না।কারণ: তিনি বলেছেন, বাবা যার অন্তরে দয়াল নবীর মহব্বত যতটুকো তার ঈমান ততটুকো,যার অন্তরে দয়াল নবীর মহব্বত নাই,তার ঈমান বলতে কিছুই নাই,সে ছাড়াছাড় বেইমান।
ফতুয়া (১১): আটরশী পীর মোশরেক।
কারণ: তিনি বলেছেন, ইহ-পরকালে যেইখানে যাই,
নবী মোহাম্মদ বিনে কোনো গতি নাই।
আটরশী পীর সাহেবের জবানে দয়াল নবী রাসূলে পাক (সাঃ) এর সুমহান তথা আকাশ চুম্বক শান মান ও গুন গান যখনি প্রকাশ পায় তখনি এই মহান ব্যাক্তির দিকে ফতুয়ার তীর বৃষ্টির মত নিক্ষেপ শুরু হয়।
সর্বোপুরী মহান সূফী সাধক আটরশী পীর সাহেব এবং ঐ সকল দল / গোষ্ঠী / শ্রেণী / ফেরকাদের মাঝে প্রার্থক্য একটাই আর তা হলো দয়াল নবী রাসূলে পাক (সাঃ)।
মহান সূফি সাধক আটরশী পীর সাহেবের হৃদয় রাজ্যে এশকে মোহাম্মাদীর প্রজ্জলিত সূর্য বিরাজমান অপরদিকে তার বিরুদ্ধে যারা তাদের হৃদয় রাজ্যে এশকে মোহাম্মাদী অমাবস্যায় বিরাজমান।
তাই আজ তাদের কাছেই আটরশী পীর সাহেব এত আলোচিত সমালোচিত।
পরিশেষে এতটুকোই বলবো, স্বয়ং খোদ খোদা যেই নবী (সাঃ)কে কেন্দ্র করে নিজের রুবুবিয়াত প্রকাশ করেছেন এবং সৃষ্টি কূল কায়নাত বানিয়েছেন,মহান সূফী সাধক আটরশী পীর সাহেব সেই নবী (সাঃ)কে কেন্দ্র করে নিজের জীবন গড়েছেন এবং লক্ষ কুটি কুটি জাকেরানদের জীবনে এশকে মোহাম্মাদীর চেরাগ জালিয়েছে।
আলহামদুলিল্লাহ্! ভাগ্যক্রমে এমন একজন মহান সূফী সাধককে পেলাম আমার বিশ্ব ওলী খাজা বাবা ফরিদপুরী ছাহেব কে পেলাম। যাহার দ্বারা সৃষ্টি কূলের শ্রেষ্ঠ রহমত দয়াল নবী রাসূলে পাক (সাঃ) এর সুমহান শান মান,গুনগান এবং অনুস্বরণ।
  
 
আরো পড়ুনঃ 

Related posts

Leave a Comment