ঢাকা ১২:৫২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইমাম হুসাইন (রাঃ) সম্পর্কে অন্য ধর্মের মনিষীদের উক্ত সমূহ

  • আপডেট সময় : ১১:১৬:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ২৩৯৬ বার পড়া হয়েছে

ইমাম হুসাইন (রাঃ) সম্পর্কে অন্য ধর্মের মনিষীদের উক্ত সমূহ

Sufibad.com - সূফিবাদ.কম অনলাইনের সর্বশেষ লেখা পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জান্নাতে যুবকদের সর্দার হযরত ইমাম হুসাইন (রাঃ) সম্পর্কে অন্য ধর্মের মনিষীদের উক্ত সমূহঃ

ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা মহাত্না গান্ধীঃ

” আমি মনে করি ইসলাম তরবারির জোরে নয় বরং ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র চরম বা সব্বোর্চ আত্নত্যাগের ফলেই বিকশিত হয়েছে।
ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র মহত আত্নত্যাগের ব্যাপক প্রশংসা করছি এ কারনে যে তিনি মুত্যু ও পিপাসায় যাতনা সয়ে নিয়েছিলেন নিজের জন্য, নিজ সন্তানদের জন্য এবং নিজ পরিবারের জন্য, আর এই সবই সয়েছেন যাতে জালেম শাসকের কাছে নত হতে না হয়। মজলুম হওয়া অবস্থায় কিভাবে বিজয় অর্জন করতে হয় অামি তার শিক্ষা পেয়েছি ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র কাছে।
ভারত যদি একটি বিজয়ী রাষ্ট্র হতে চায় তাহলে তাকে ইমাম হুসাইনের (রাঃ) আর্দশ অনুসরন করতে হবে।
ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র ৭২ জন সেনার মত সেনা যদি অামার থাকতো তাহলে আমি ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ভারতের স্বাধীনতা এনে দিতে পারতাম।

বিশ্ব কবি রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরঃ

” ন্যায় বিচার ও সত্যকে বাচিয়ে রাখতে অস্ত্র ছাড়াই বিজয় আসতে পারে জীবন উৎসর্গ করার মাধ্যমে ঠিক যেভাবে বিজয়ী হয়েছেন ইমাম হুসাইন (রাঃ)।
ইমাম হুসাইন মানবতার নেতা
ইমাম হুসাইন শীতলতম হৃদয়কে ও উষ্ঞ করেন।
হুসাইন (রাঃ)’র আত্নত্যাগ আধ্যাত্নিক স্বাধীনতাকে তুলে ধরে।

খ্রিস্টান গবেষক অ্যান্টন বারাঃ

” যদি হুসাইন (রাঃ) আমাদের খ্রিস্টানদের মধ্যে হতেন তাহলে প্রত্যেক দেশেই তাঁর জন্য পতাকা উড়াতাম এবং প্রত্যেক গ্রামেই তাঁর জন্য মিম্বার স্থাপন করতাম”

বিখ্যাত ব্রিটিশ লেখক টমাস মাসারিকঃ

” আমাদের পাদ্রিরা হযরত মাসিহর শোক গাঁথা বর্ননার মাধ্যমে লোকদের প্রভাবিত করেন। কিন্তু ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র অনুসারিদের মধ্যে যে অাবেগ ও উচ্ছাস দেখা যায় তা হযরত মাসিহ’র অনুসারিদের মাঝে পাওয়া যাবে না। এর কারন মনে হয়, ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র শোকের বিপরীতে মাসিহ’র শোক যেন বিশালদেহী এক পবর্তের সামনে ক্ষুদ্র এক খড়কুটোর সমান”।

বিখ্যাত ইংরেজ সাহিত্যিক চালর্স ডিকেন্সঃ

” যদি ইমাম হুসাইন (রাঃ) পার্থিব কামনা বাসনার জন্য যুদ্ধ করতেন তাহলে তিনি তাঁর বোন, স্ত্রী ও শিশুদের সঙ্গে অানতেন না। তিনি শুধু ইসলামের জন্যই ত্যাগ স্বীকার করেছেন।”

বিখ্যাত ইংরেজ প্রাচ্যবিদ অ্যাডওয়ার্ড ব্রাউরঃ

” এমন কোনো অন্তর পাওয়া যাবে কি যে, যখন কারবালার ঘটনা সম্পর্কে শুনবে অথচ দুঃখিত ও বেদনাহত হবে না? এমনকি কোনো অমুসলিমও এই ইসলামি যুদ্ধকেও তাঁর পতাকাতলে যে আত্নিক পবিত্রতা সাধিত হয়েছে তা অস্বীকার করতে পারে না”।

আল্লাহপাক ইমাম ছাহেবের পাক মহব্বত আমাদের দেলে পয়দা করুন 

 

লেখকঃ সুজন শাহজী 

আরো পড়ুনঃ

ব্লগটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

Discover more from Sufibad.Com - সূফীবাদ.কম

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading

ইমাম হুসাইন (রাঃ) সম্পর্কে অন্য ধর্মের মনিষীদের উক্ত সমূহ

আপডেট সময় : ১১:১৬:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জান্নাতে যুবকদের সর্দার হযরত ইমাম হুসাইন (রাঃ) সম্পর্কে অন্য ধর্মের মনিষীদের উক্ত সমূহঃ

ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা মহাত্না গান্ধীঃ

” আমি মনে করি ইসলাম তরবারির জোরে নয় বরং ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র চরম বা সব্বোর্চ আত্নত্যাগের ফলেই বিকশিত হয়েছে।
ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র মহত আত্নত্যাগের ব্যাপক প্রশংসা করছি এ কারনে যে তিনি মুত্যু ও পিপাসায় যাতনা সয়ে নিয়েছিলেন নিজের জন্য, নিজ সন্তানদের জন্য এবং নিজ পরিবারের জন্য, আর এই সবই সয়েছেন যাতে জালেম শাসকের কাছে নত হতে না হয়। মজলুম হওয়া অবস্থায় কিভাবে বিজয় অর্জন করতে হয় অামি তার শিক্ষা পেয়েছি ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র কাছে।
ভারত যদি একটি বিজয়ী রাষ্ট্র হতে চায় তাহলে তাকে ইমাম হুসাইনের (রাঃ) আর্দশ অনুসরন করতে হবে।
ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র ৭২ জন সেনার মত সেনা যদি অামার থাকতো তাহলে আমি ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ভারতের স্বাধীনতা এনে দিতে পারতাম।

বিশ্ব কবি রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরঃ

” ন্যায় বিচার ও সত্যকে বাচিয়ে রাখতে অস্ত্র ছাড়াই বিজয় আসতে পারে জীবন উৎসর্গ করার মাধ্যমে ঠিক যেভাবে বিজয়ী হয়েছেন ইমাম হুসাইন (রাঃ)।
ইমাম হুসাইন মানবতার নেতা
ইমাম হুসাইন শীতলতম হৃদয়কে ও উষ্ঞ করেন।
হুসাইন (রাঃ)’র আত্নত্যাগ আধ্যাত্নিক স্বাধীনতাকে তুলে ধরে।

খ্রিস্টান গবেষক অ্যান্টন বারাঃ

” যদি হুসাইন (রাঃ) আমাদের খ্রিস্টানদের মধ্যে হতেন তাহলে প্রত্যেক দেশেই তাঁর জন্য পতাকা উড়াতাম এবং প্রত্যেক গ্রামেই তাঁর জন্য মিম্বার স্থাপন করতাম”

বিখ্যাত ব্রিটিশ লেখক টমাস মাসারিকঃ

” আমাদের পাদ্রিরা হযরত মাসিহর শোক গাঁথা বর্ননার মাধ্যমে লোকদের প্রভাবিত করেন। কিন্তু ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র অনুসারিদের মধ্যে যে অাবেগ ও উচ্ছাস দেখা যায় তা হযরত মাসিহ’র অনুসারিদের মাঝে পাওয়া যাবে না। এর কারন মনে হয়, ইমাম হুসাইন (রাঃ)’র শোকের বিপরীতে মাসিহ’র শোক যেন বিশালদেহী এক পবর্তের সামনে ক্ষুদ্র এক খড়কুটোর সমান”।

বিখ্যাত ইংরেজ সাহিত্যিক চালর্স ডিকেন্সঃ

” যদি ইমাম হুসাইন (রাঃ) পার্থিব কামনা বাসনার জন্য যুদ্ধ করতেন তাহলে তিনি তাঁর বোন, স্ত্রী ও শিশুদের সঙ্গে অানতেন না। তিনি শুধু ইসলামের জন্যই ত্যাগ স্বীকার করেছেন।”

বিখ্যাত ইংরেজ প্রাচ্যবিদ অ্যাডওয়ার্ড ব্রাউরঃ

” এমন কোনো অন্তর পাওয়া যাবে কি যে, যখন কারবালার ঘটনা সম্পর্কে শুনবে অথচ দুঃখিত ও বেদনাহত হবে না? এমনকি কোনো অমুসলিমও এই ইসলামি যুদ্ধকেও তাঁর পতাকাতলে যে আত্নিক পবিত্রতা সাধিত হয়েছে তা অস্বীকার করতে পারে না”।

আল্লাহপাক ইমাম ছাহেবের পাক মহব্বত আমাদের দেলে পয়দা করুন 

 

লেখকঃ সুজন শাহজী 

আরো পড়ুনঃ